ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলন ১১-১২ মে

0
323

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ছাত্রলীগের ২৯তম জাতীয় সম্মেলন আগামী ১১ ও ১২ মে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ওই সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন। এর আগে ২৪ ও ২৬ এপ্রিল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর এবং ২৯ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সম্মেলন করবে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম এই সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠনটির সম্মেলনের এই তারিখ ঘোষণা করেন ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। তিনি বলেন, ২০১৫ সালের ২৬ জুলাইয়ের পর এখন পর্যন্ত দায়িত্ব পালনে তারা সফল।

সাংগঠনিক নেত্রী ও একমাত্র অভিভাবক (প্রধানমন্ত্রী) যখন যে নিদের্শনা দিয়েছেন, কমিটি গঠনসহ বিভিন্ন কাজ সফলতার সঙ্গেই সেই দায়িত্ব পালন করেছেন তারা।  তিনি বলেন, সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনে ভুল-ত্রুটি থাকতে পারে। তবে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে তারা নিজেদের কোনো ব্যর্থতা দেখছেন না। তারা মনে করেন, দায়িত্ব পালনে তারা শতভাগ সফল। আর শতভাগ সফলতার পর ব্যর্থতা থাকে না।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইনও একই দাবি করেন। তিনি বলেন, বর্তমান কমিটির যত সফলতা তার অংশীদার কেন্দ্রীয় কমিটির সব নেতা। যদি কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকে, তাহলে এর দায়দায়িত্ব তারা দু’জন (সভাপতি-সম্পাদক) নিয়ে নিচ্ছেন। ব্যর্থতা-সফলতার বিচার করার দায়িত্ব সারাদেশের ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও গণমাধ্যমের।  এর আগে ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলন গত ৩১ মার্চ আয়োজনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল।

তবে ৮ মার্চ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে ওই সম্মেলন স্থগিত করা হয়। গত শনিবার দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে রোজার আগেই এই সম্মেলন শেষ করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। সম্ভাব্য তারিখ হিসেবে ১১ মে নির্ধারণ করা হয়। ২০১৫ সালের ২৫-২৬ জুলাই ছাত্রলীগের সর্বশেষ জাতীয় সম্মেলনের মাধ্যমে গঠিত বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির দুই বছরের মেয়াদ প্রায় আট মাস আগে শেষ হয়েছে।

কোনো চাপের কারণে ছাত্রলীগের সম্মেলন হচ্ছে কি-না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, কিসের চাপ? একমাত্র সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছা অনুযায়ীই ছাত্রলীগের সম্মেলন করছেন তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here