নিজের দেবরের শিশু সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা করেছে এক নারী

0
453

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বগুড়ার শিবগঞ্জে মানসিক রোগী এক নারী নিজের দেবরের শিশু সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা করেছে । পরে গ্রামবাসীর রোষানল থেকে তাকে উদ্ধারে গিয়ে মারা গেছেন এক পুলিশ কনস্টেবল।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সাকিব নামে ১১ বছর বয়সী একটি ছেলেকে ফসলের ক্ষেতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে শিউলি খাতুন।

শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে ওই হত্যাকাণ্ডের পরপরই বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী শিউলিকে ঘরে আটকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে হত্যার চেষ্টা চালায়।
পরে জনতার রোষানল থেকে তাকে উদ্ধার করে ফেরার পথে বিকেলে ইকরামুল হক (৪৮) নামে পুলিশের এক কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে।

পুলিশের দাবি, স্ট্রোকে ওই কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে।

শিশু হন্তারক শিউলি খাতুনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত সাকিব শিবগঞ্জ উপজেলার দেউলি ইউনিয়নের বোয়ালমারী পূর্বপাড়া গ্রামের হেলার উদ্দিনের ছেলে। সে ফাঁসিতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল। কনস্টেবল ইকরামুলের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জে।

বগুড়ার মোকামতলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান, স্কুলছাত্র সাকিব শুক্রবার দুপুরে তাদের জমিতে বেগুন তুলছিল।
দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিউলি খাতুন ওই জমিতে গিয়ে হঠাৎই তার দেবরের ছেলে সাকিবকে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে।
এর পর শিউলি বাড়িতে চলে যায়। ফসলের ক্ষেতে সাকিবের লাশ পড়ে থাকার খবরে গ্রামবাসী সেখানে ছুটে যায়।
তখনই তারা জানতে পারে সেখানে সাবিকের বড় চাচি ওই বেগুন ক্ষেতে এসেছিল। এর পর বিক্ষুব্ধ গ্রামাবসী গ্রামে ফিরে শিউলিকে তার ঘরে আটকে বাইরে থেকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে।

তিনি জানান, খবর পেয়ে মোকামতলা তদন্ত কেন্দ্র থেকে একদল পুলিশ বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে শিউলি খাতুনকে উদ্ধার এবং তাকে গ্রেফতার করে উপজেলা সদরের দিকে রওনা দেয়।
৩-৪ কিলোমিটার আসার পরপরই অভিযানে থাকা কনস্টেবল ইকরামুল হক (নং-১১৪৯) অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়।

মিজানুর রহমান বলেন, ‘কনস্টেবল ইকরামুল আগে থেকেই অসুস্থ ছিলেন। স্ট্রোকের পর হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তিনি মারা যান।’

তিনি বলেন, শিউলি মানসিক রোগী। তাকে এর আগে একাধিকবার চিকিৎসা করানো হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। তবে প্রস্তুতি চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here