‘মনপুরা’ থেকে ‘স্বপ্নজাল’

0
452

রহমান মতি

সালটা ২০০৯। টিভি চ্যানেলে অনেক আগ থেকেই শুরু হয়েছিল বিজ্ঞাপনটি-‘আসছে সোনাই-পরী যুগলের আবহমান প্রেমের ছবি গিয়াসউদ্দিন সেলিমের মনপুরা।’ মুক্তি পেয়েছিল সে বছরের ভ্যালেন্টাইন উপলক্ষে। তারিখটা ১৩ ফেব্রুয়ারি।

প্রথম সপ্তাহে অল্প কিছু হলে মুক্তি পেলেও জনে জনে ছড়িয়ে গেল ছবির নাম। পরের সপ্তাহে অনেকগুলো হলে ছড়িয়ে পড়ল। তারপর একজন দর্শক একাধিকবার করে দেখেছে। এমনি করে ‘মনপুরা’ হয়ে গেল দেশের ইতিহাসে অন্যতম সেরা ব্যবসাসফল ছবি।

ছবির জুটি সোনাই-পরী একটা ক্লাসিক আবেদনে সর্বমহলের দর্শকের মনে ঠাঁই পেল। মনে আছে অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু-র গাওয়া ‘নিথুয়া পাথারে’ গানটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-শিক্ষক সবার মুখে মুখে ছিল। বাবুর গায়কীতে মুগ্ধ ছিল সবাই। হললাইফে রাতে ছাদে উঠলেই দেখতাম গীটারের সাথে বাজিয়ে গানটা গাইছে ছেলেরা কিংবা ক্যাম্পাসে রাতে হাঁটতে বের হলেও কানে আসত কেউ না কেউ গাইছে। চূড়ান্ত রকমের হাইপ ছিল। চন্দনা মজুমদার আর কৃষ্ণকলির ‘যাও পাখি বলো তারে’ গানটির জনপ্রিয়তা ছিল আলাদা করে। তখন গ্রামের বিয়ের বাড়িতেও গানটি বাজাতে দেখেছি। রুট লেভেলের দর্শকের কাছেও গানের আবেদনটা পৌঁছে গিয়েছিল।

অর্ণবের ‘আমার সোনার ময়না পাখি’ এ গানটি জনপ্রিয় ছিল তরুণ প্রজন্মের কাছে এমনকি ‘সোনাই হায় হায়রে’ চঞ্চল চৌধুরীর গাওয়া গানটিও। ছবি এবং গান সম্পূর্ণ আলাদা আবেদনে সর্বমহলের দর্শকের কাছে পৌঁছে গিয়েছিল। এমন ঘটনা খুব কম ঘটে। ছবির প্রচারণায় বড় বড় বিলবোর্ড ছিল ঢাকা এবং ঢাকার বাইরেও। টি-শার্টে ‘মনপুরা’ লেখা থাকত সেগুলোও প্রচারণার কাজে ব্যবহার হত। একটা টোটাল কমার্শিয়াল ভঙ্গিতে ছবিটির সবকিছু হয়েছে আর এভাবেই ‘মনপুরা’ ক্লাসিক হয়ে গেছে আজ।

গিয়াস উদ্দিন সেলিম তাঁর পরবর্তী ছবি ‘স্বপ্নজাল’ নির্মাণ করেছেন নয় বছর পরে। অনেক বড় ব্যবধান। এর মাঝে ‘কাজলরেখা’ ছবিটি প্রযোজক সমস্যার কারণে শেষ পর্যন্ত হয়নি। ‘স্বপ্নজাল’ যে সময়ে নির্মাণ করেছেন সময়ের একটা বড় পরিবর্তন আছে। ২০০৯ থেকে ২০১৮ অনেক পাল্টে যাওয়া একটা সময়। এখন ঢালিউড ইন্ডাস্ট্রি তখনকার মতো নেই। মিডিয়া বেড়েছে, বেড়েছে চলচ্চিত্র বিষয়ক লেখালেখি, সমালোচনা।

সমালোচনার জায়গাতে যতবড় পরিচালকই হোক না কেন ছবি ভালো না লাগলে বা প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হলে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। তাই পরিচালক যত বড় তাকে ঝুঁকিটাও নিতে হয় তত বড় দর্শকের প্রত্যাশা পূরণের জন্য। ‘স্বপ্নজাল’ এই সময়ের জন্য চ্যালেন্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরীমণি-ইয়াশ রোহান নায়ক-নায়িকা নির্বাচনেও চ্যালেন্জে পড়ে গেছে। ট্রেলারে তারা প্রশংসিত হয়েছে। ছবির গল্পের যতটুকু ধারণা পাওয়া গেছে আশাবাদী দর্শক। ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে কাল। ‘মনপুরা’-র মতোই অল্প সিনেমাহলে মুক্তি পাচ্ছে। অপেক্ষা করতে হচ্ছে ঐ ঘটনার পুনরাবৃত্তির জন্য যদি ছবি ভালো লাগে দর্শকের তবে জনে জনে যাতে পৌঁছে যায়। তবেই কিছু একটা হবে।

‘মনপুরা’ তার মতো, ‘স্বপ্নজাল’ তার মতো।
‘মনপুরা’ ফিরে আসুক ‘স্বপ্নজাল’-এ প্রত্যাশা এটাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here