শবে বরাতের তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তি, ১০ সদস্যের কমিটি গঠন

0
278

নিজস্ব প্রতিবেদক

পবিত্র শবে বরাতের তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে ১০ সদস্যের সাব-কমিটি গঠন করে দিয়েছে সরকার। এ কমিটি শবে বরাতের আগে আগামী ১৭ এপ্রিলের মধ্যে তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক শেষে এ কথা জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ।

প্রায় দুই ঘণ্টার বৈঠক শেষে প্রতিমন্ত্রী জানান, বিষয়টা যেহেতু ধর্মীয়, যারা আমাদের দেশে সব চাইতে জ্ঞানবান আলেম, তাদের ওপর দায়িত্বটা দেওয়া হয়েছে। তারাই সিদ্ধান্ত নেবেন।

শবে বরাতের তারিখ নিয়ে বিভ্রাট হয়েছে বলে দাবি করে মজলিসু রুইয়াতিল হিলাল নামের একটি সংগঠন। সংগঠনটির প্রতিনিধিরা এ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেন, চাঁদ দেখা কমিটিতে আলেম, আবহাওয়া অধিদফতরসহ সশ্লিষ্টরা রয়েছেন। সবার পরামর্শে চাঁদ দেখা কমিটি সিদ্ধান্ত জানাবে। কিন্তু কিছু গোষ্ঠী এ সিদ্ধান্তের আপত্তি জানাচ্ছে। তাদের উদ্দেশ্য সৎ বলে বিবেচিত মনে হচ্ছে না। তারপরও বিভ্রান্তি দূর করতে ১০ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটি ১৭ এপ্রিলের মধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবেন।

কমিটির আহ্বায়ক মাওলানা আব্দুল মালেক। কমিটিতে রয়েছেন মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা রুহুল আমীন, মাওলানা মিজানুর রহমান, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, মাওলানা দেলোয়ার, মুফতি ফয়জুল্লাহ, বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম মিজানুর রহমান, মুফতি ইয়াহইয়া।

বাংলাদেশের আকাশে শনিবার (৬ এপ্রিল) হিজরি শাবান মাসের চাঁদ দেখা যায়নি বলে ঘোষণা দিয়েছিল সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি। সেদিন সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা শেষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি ও ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানিয়েছিলেন, ২১ এপ্রিল দিবাগত রাতে সারাদেশে পবিত্র লাইলাতুল বরাত বা শবে বরাত পালিত হবে।

তবে মজলিসু রুইয়াতিল হিলাল দাবি করছে, ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের আকাশে শাবন মাসের চাঁদ দেখা গিয়েছে। সংগঠনটির দাবি, ভুল তারিখে পবিত্র শবে বরাতের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।

২১ এপ্রিল শবে বরাতের তারিখ নির্ধারণের পর চলমান এইচএসসির পাঁচ দিনের পরীক্ষার সূচি বদল করে দেওয়া হয়েছে।

ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান ছাড়াও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং সংশ্লিষ্টরা ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here